প্রতিশোধের অন্তর্নিহিত তাগিদকে নিয়ন্ত্রণ করতে শিখুনকোরবানিদাতার জন্য যেসব কাজ নিষিদ্ধনামাজ শেষে সালাম ফেরানোর পর জিকির ও দোয়াহজে সাফা-মারওয়া ‘সায়ী’র নিয়মবন্যার্তদের সেবায় ইসলামের নির্দেশনা
No icon

হজে নারীদের তাওয়াফ ও সায়ী

কাবা শরিফ তাওয়াফ ও সাফা-মারওয়া সায়ী করা হজ ও ওমরার অন্যতম রোকন। কিন্তু নারীরা কখন কাবা শরিফ তাওয়াফ ও সাফা-মারওয়া সায়ী করবেন? কোন সময়টিতে তাওয়াফ ও সায়ী করা নারীদের জন্য নিরাপদ ও সুবিধাজনক?

নারীর তাওয়াফ ও সায়ী

ইসলামি শরিয়তে নারীদের জন্য তাওয়াফ ও সায়ী করার বিকল্প কোনো সুনির্দিষ্ট নিয়ম নেই। তবে হজের সময় যেহেতু প্রচণ্ড ভিড় হয়; তাই অপেক্ষাকৃত কম ভিড়ের সময় তাওয়াফের জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করাই উত্তম।

মাতাফ তথা তাওয়াফের স্থানে যখন পুরুষের ভিড় কম থাকে তখনই নারীদের তাওয়াফ করা ভালো। তবে দিনের চেয়ে রাতে অপেক্ষাকৃত ভিড় কম থাকে। আর ভিড় থাকলেও নারীদের ভিড়ই রাতে বেশি থাকে। সুতরাং নারীদের জন্য রাতকেই তাওয়াফের জন্য বেছে নেয়া উত্তম।তাছাড়া নারীদের হজ ও ওমরায় মাহরাম আবশ্যক। তাই মাহরামগণ নারীদের হজ ও ওমরার রোকনগুলো পালনে তাদের প্রতি বিশেষ নজর রাখা জরুরি।আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর সব নারীকে পর্দা পালনের সঙ্গে যথাযথভাবে কাবা শরিফ তাওয়াফ ও সাফা মারওয়া সাঈ করার তাওফিক দান করুন। হজে গমনকারী সব নারীকৈ হজে মাবরূর দান করুন। আমিন।