সৌদিসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে উদযাপিত হচ্ছে ঈদুল ফিতরবৃহস্পতিবার পবিত্র ঈদুল ফিতরপবিত্র কাবা শরীফ থেকে তিন কিলোমিটার দূর গেলো তারাবির নামাজের কাতারসংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিনদের বেতন বৃদ্ধি পাবে : ক্রাউন প্রিন্স শেখ হামদান বিন মোহাম্মদপবিত্র ভূমি জেরুজালেমের আল-আকসায় ১ লাখ ২০ হাজার মুসল্লির নামাজ আদায়
No icon

যে স্থানে ৭০ জন নবী নামাজ পড়েছেন

মসজিদুল খাইফ ইসলামের ইতিহাসের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি মসজিদ। যা সৌদি আরবের দক্ষিণ মিনার আল-দিবাআ পর্বতের পাদদেশ অবস্থিত। ঐতিহাসিক এই স্থানে মহানবী (সা.), মুসা (আ.)-সহ ৭০ জন নবী নামাজ আদায় করেছেন। এ জন্য একে নবীদের মসজিদও বলা হয়।

হজ পালনের সময় হাজিরা মিনায় অবস্থান করেন এবং এখানে দোয়া কবুল হয় বলে ধারণা করা হয়। ১৯৮৭ সালে ২৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয়ে মসজিদুল খাইফ সম্প্রসারণ করা হয়। এ সময় চারটি মিনার নির্মাণ করা হয়। হাজিদের সুবিধার্থে তখন তাতে ৪১০টি এসি, ১১ শ বৈদ্যুতিক পাখা, এক হাজার টয়লেট ও তিন হাজার পানির কল স্থাপন করা হয়।

একাধিক হাদিসে মসজিদুল খাইফের বর্ণনা এসেছে। যেমন

১. আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ৭০ জন নবী মসজিদুল খাইফে নামাজ আদায় করেছেন। (মাজমাউল জাওয়াইদ)

২. ইয়াজিদ ইবনে আসওয়াদ (রা.) বলেন, তিনি রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর সঙ্গে হজ করেছেন এবং নবীজি (সা.)-এর সঙ্গে মসজিদুল খাইফে ফজরের নামাজ আদায় করেছেন।

৩. আবদুর রহমান ইবনে মুয়াজ (রা.) বলেন, রাসুলুল্লাহ (সা.) মিনায় একটি ভাষণ দেন। তখন তিনি মুহাজিরদের মসজিদুল খাইফের সামনে এবং আনসারদের মসজিদের পাশে তাঁবু স্থাপন করতে বলেন। (সুনানে আবি দাউদ)